ক্রীড়া পরিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৬ এপ্রিল ২০১৬

জীবন-বৃত্তান্ত

মাননীয় প্রতিমন্ত্রী

ড. শ্রী বীরেন শিকদার
প্রতিমন্ত্রী, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়

 

মাগুরা জেলার মহম্মদপুর, শালিখা উপজেলা ও মাগুরা সদর উপজেলার চারটি ইউনিয়ন পরিষদ নিয়ে গঠিত ৯২ মাগুরা-২ আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কর্তৃক মনোনীত নির্বাচিত সংসদ সদস্য ড. শ্রী বীরেন শিকদার-এর জন্ম ১৯৪৯ সালের ১৬ অক্টোবর শালিখা উপজেলার সিংড়া গ্রামে। পিতার নাম মৃত বিহারী লাল শিকদার এবং মাতা মৃত শ্রীমতি সরস্বতী শিকদার। পিতা পেশায় একজন ব্যবসায়ী ছিলেন।

ড. শ্রী বীরেন শিকদার ঝিনাইদহ জেলার হাটবারবাজার হাইস্কুল হতে এস এস সি, মাগুরা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ হতে এইচ এস সি ও যশোর মাইকেল মধুসূদন কলেজ থেকে গ্রাজুয়েশন ডিগ্রি গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় হতে আইনশাস্ত্রে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। ড. শ্রী বীরেন শিকদার পেশায় একজন আইনজীবী।

ছাত্রজীবন থেকেই ড. শ্রী বীরেন শিকদার রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। তিনি ১৯৬৮-৬৯ সালে বৃহত্তর যশোর জেলার ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। ১৯৬৯ সালের গণআন্দোলনে তিনি ছাত্রসংগ্রাম পরিষদ, বৃহত্তর যশোর এর আহবায়ক ছিলেন। ১৯৭১ সালে তিনি মুজিব বাহিনীর সদস্য হিসেবে নিজ এলাকায় মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন।

ড. শ্রী বীরেন শিকদার ১৯৮৫ সালে শালিখা উপজেলার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে এলাকায় বহু উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডে নেতৃত্ব দেন। ১৯৯৬ সালে সপ্তম জাতীয় সংসদের সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়ে তিনি এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করেন। ড. শিকদার গত এক দশকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য, শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি ও সরকারি প্রতিষ্ঠান কমিটির সম্মানিত সদস্য এবং বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন পরম নিষ্ঠা ও সফলতার সাথে।

অনেক জনহিতকর কাজেই ড. শ্রী বীরেন শিকদার এর অংশ গ্রহণ রয়েছে। তিনি তাঁর নিজ গ্রাম শালিখার সিংড়ায় তাঁর মায়ের নামে সরস্বতী শিকদার স্কুল এ্যান্ড কলেজ, পিতার নামে বিহারীলাল শিকদার ডিগ্রি কলেজ এবং আড়পাড়া ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা। মহম্মদপুর সদরে তার নিজ নামে শ্রী বীরেন শিকদার আদর্শ স্কুল এন্ড কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন। এছাড়া এলাকায় বহু রাস্তাঘাট, সেতু, কালভার্ট নির্মাণ, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার সংস্কার সহ বিভিন্ন উন্নয়নমূখী কর্মকান্ডে তিনি অনবদ্য ভূমিকা রেখে চলেছেন।

স্ত্রী শ্রীমতি শান্তিলতা শিকদার শিক্ষিতা এবং গৃহবধু। এ পরিবারের এক ছেলে ও এক মেয়ে। ছেলে অমিতাভ শিকদার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবসা প্রশাসন ইনষ্টিটিউট হতে এমবিএ পাস করেছেন। মেয়ে বিউটি শিকদার স্নাতকোত্তর ডিগ্রি প্রাপ্ত। বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকুরি করছেন।

ড. শ্রী বীরেন শিকদার জাপান, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, ভারত, নেপাল, ভূটান, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ কোরিয়া, ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, সৌদি আরব, কাজাকাস্থান, তুরস্ক, অষ্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও আমেরিকা সফর করেন এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে কম্বোডিয়া সফর করেন। জনগনের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়ন তথা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার সংগ্রামে ড. শ্রী বীরেন শিকদার আত্মনিবেদিত। শিক্ষা ও সমাজ সেবায় বিশেষ অবদান রাখার কারণে ভারতের কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় তাকে বি আর আন্বেদকর পুরস্কারে ভূষিত করে। সম্প্রতি মানবিক ও সামাজিক কল্যাণে অসামান্য অবদান রাখায় অল ইন্ডিয়া ভিক্ষু সংঘ কতৃক লর্ড বুদ্ধ ইন্টারন্যাশনাল পিস এ্যাওয়াড ২০১৫ এ ভূষিত হন।

সচ্চরিত্রের অধিকারী হয়ে যোগ্য নাগরিকরূপে নিজেদের গড়ে তুলে দেশ সেবায় আত্মনিয়োগের জন্য তিনি নতুন প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের উপদেশ দেন। একজন বিশিষ্ট ভদ্রজন ও মেধাবী সমাজনেতা হিসেবে দেশে বিদেশে ড. শ্রী বীরেন শিকদার বিশেষভাবে সমাদৃত। তিনি ১৯৯৬ সালে ও ২০০৮ সালে জাতীয় সংসদের সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী অনুষ্ঠিত দশম জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন এবং ১২ জানুয়ারী যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হন।


Share with :
Facebook Facebook